দরখাস্ত লেখার নিয়ম ছবি এবং pdf সহ সকল প্রকার নমুনা

ছাত্র জীবন থেকে শুরু করে কর্মজীবনেও দরখাস্ত লেখার গুরুত্ব অপরিসীম। এবং কি চাকরি – বাকরি থেকে অবসর হয়েও বিভিন্ন ভাতার জন্য দরখাস্ত লিখতে হয়।সঠিকভাবে দরখাস্ত লেখার নিয়ম তথা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম জানা থাকলে আপনার আবেদনপত্রটি কর্তৃপক্ষ বিশেষ গুরত্ব দিয়ে দেখবে।

সূচীপত্র

দরখাস্ত লেখার নিয়ম

  • ১. পৃষ্টার উপরের বাম পাশে সর্বপ্রথম তারিখ লিখতে হবে। (যেমন, তারিখঃ-২২-০৬-২০২২)
  • ২. তারিখের বরাবর নিচে প্রাপকের নাম/পদবী লিখতে হবে। (অর্থাৎ যার কাছে দরখাস্তটি লিখছেন তার নাম/পদবী)
  • ৩. তারপর লিখতে হবে প্রাপকের বা উক্ত প্রতিষ্ঠানের সঠিক ঠিকানা।
  • ৪. এরপর সংক্ষেপে দরখাস্তের মূল বিষয়বস্তুু।
  • ৫. এরপর বর্ননা করতে হবে সুস্পষ্টভাবে দরখাস্তের কারণ সহ ব্যাখ্যা। এখানে আপনি মূল বিষয়বস্তুু উল্লেখ করবেন।
  • ৬. পুরো বর্ননা শেষে নিচে “বিনীত নিবেদক” কথাটি লিখে আপনার নাম ঠিকানা স্পষ্টভাবে লিখতে হবে।
  • ৭. এরপর একটি খামে করে দরখাস্তটি প্রাপকের কাছে জমা দিতে হবে।

বাংলা দরখাস্ত লেখার নিয়ম

  • দরখাস্ত সবসময় এক পৃষ্ঠার মধ্যে লিখতে হবে।
  • দরখাস্ত লেখার পৃষ্টায় কোন মার্জিন দেওয়া যাবে না। (এতে দরখাস্তের সৌন্দর্য নষ্ট হয়).
  • দরখাস্তে যেন কোন কাঁটাছেড়া লেখা না থাকে।
  • বানানের প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। যেন বানান ভুল না হয়।
  • দরখাস্তে অতিরিক্ত অহেতুক কথা লিখবেন না। সংক্ষেপে মূল সমস্যা তুলে ধরার চেষ্টা করবেন।
  • স্পষ্ট করে গোটা গোটা অক্ষরে লিখবেন। যেন যে কেউ সেটা সহজেই পড়তে পারে। কারণ, হিজিবিজি লেখাকে অন্যরা কম প্রাধান্য দেয়।

দরখাস্ত লেখার নিয়ম ছবি

দরখাস্ত লেখার নিয়ম ছবি
দরখাস্ত লেখার নিয়ম ছবি
দরখাস্ত লেখার নিয়ম ছবি
দরখাস্ত লেখার নিয়ম ছবি
দরখাস্ত লেখার নিয়ম
দরখাস্ত লেখার নিয়ম ছবি
দরখাস্ত লেখার নিয়ম ছবি
দরখাস্ত লেখার নিয়ম ছবি

ছুটির দরখাস্ত লেখার নিয়ম

অনেক সময় বড় ভাই বোনের বিয়েতে, কিংবা পরিবারের সাথে কোথাও বেড়াতে গেলে স্কুল থেকে অগ্রিম ছুটির জন্য দরখাস্ত করতে হয়। নিন্মে ছুটির দরখাস্ত লেখার সঠিক নিয়ম দেওয়া হলো।

অগ্রীম ছুটির দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও নমুনা

তারিখঃ- ২২-০৬-২০২২ ইং

বরাবর,
প্রধান শিক্ষক।
কুমিরা আবাসিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।
কুমিরা, চট্টগ্রাম।
বিষয়ঃ- তিনদিনের জন্য অগ্রিম ছুটি চেয়ে দরখাস্ত।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির একজন নিয়মিত ছাত্রী। আগামী ২৪-০৬-২০২২ ইং তারিখে আমার বড় বোনের বিবাহ অনুষ্ঠিত হবে। উক্ত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করার জন্য আগামী ২৩-০৬-২০২২ ইং থেকে ২৫-০৬-২০২২ ইং পর্যন্ত তিনদিনের ছুটি অত্যন্ত প্রয়োজন।

অতএব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমাকে উক্ত তিনদিনের ছুটি প্রদান করে বাধিত করবেন।

বিনীত নিবেদক,
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্রী
শারমিন আক্তার।
অষ্টম শ্রেণি
শাখা- “ক”
রোল – ২২

অফিস থেকে অগ্রিম ছুটি চেয়ে দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও উদাহরণ

তারিখঃ- ২৮-০৬-২০২২

বরাবর
ব্যাংক ম্যানেজার
সোনালী ব্যাংক কোম্পানি লিমিটেড
সীতাকুণ্ড চট্টগ্রাম।
বিষয়ঃ- জরুরি প্রয়োজনে ৫ দিনের ছুটির জন্য আবেদন।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার প্রতিষ্ঠানের একজন বেতনভুক্ত কর্মচারী। আমি গত তিন বছর ধরে নিষ্ঠার সঙ্গে প্রতিনিয়ত আপনার প্রতিষ্ঠানে কাজ করে এসেছি। আমি সর্বদা চেষ্টা করেছি উক্ত গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সেবা প্রদান করে প্রতিষ্ঠানের সুনাম অক্ষুণ্ণ রাখতে। যার ফলে আমি এর আগে কখনোই অপ্রয়োজনে কোন ছুটি কাটাইনি। কিন্তু আজ সকালে আমার গ্রামের বাড়ি থেকে ফোন আসে, এবং আমি জানতে পারি আমার বাবা শারীরিকভাবে ভীষণ অসুস্থ হয়ে পড়েছে। উনাকে হাসপাতালে নিয়ে ভালো চিকিৎসা দেওয়ার জন্য আমি ছাড়া আমার পরিবারের আর কোন শক্ত সামর্থ্য অভিভাবক নেই।

অতএব, আপনার কাছে আমার বিনীত অনুরোধ এই যে, উপরে সমস্যাটি বিবেচনা করে আমার ৫ দিনের আবেদনটিকে স্বীকার করে অফিস ত্যাগের অনুমতি প্রদান করলে বাধিত হবো।

নিবেদক
শারমিন আক্তার।
সহকারী পরিচালক
সোনালী ব্যাংক লিমিটেড চট্টগ্রাম।

অনুপস্থিতির জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম নমুনা

তারিখঃ- ২২-০৬-২০২২

বরাবর,
প্রধান শিক্ষক।
কুমিরা আবাসিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।
কুমিরা, চট্টগ্রাম।
বিষয়ঃ- অনুপস্থিতির জন্য আবেদন।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির একজন নিয়মিত ছাত্রী। গত কয়েক দিন ধরে ঠাণ্ডাজনিত সমস্যায় আমি জ্বর কাশি সহ নানা অসুস্থতার কারণে ১৮-০৬-২০২২ ইং থেকে ২১-০৬-২০২২ তারিখ পর্যন্ত আপনার বিদ্যালয়ে উপস্থিত থাকতে পারিনি।

অতএব, বিনীত নিবেদন আমার শারীরিক অসুস্থতার কথা বিবেচনা করে আমাকে গত চার দিনের ছুটি মওকুফ করে কৃতার্থ করতে মহোদয়ের মর্জি হোক।

বিনীত নিবেদক,
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্রী
শারমিন আক্তার
অষ্টম শ্রেণি
শাখা ‘ক’
রোল ২২

ছাত্রাবাসে থাকার জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও উদাহরণ

তারিখ ২২-০৬-২০২২
বরাবর
প্রধান শিক্ষক
কুমিরা আবাসিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।
সীতাকুণ্ড চট্টগ্রাম।
বিষয়ঃ- ছাত্রাবাসে থাকার জন্য আবেদন।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির একজন নিয়মিত ছাত্রী। আমার বাবা একজন সরকারি চাকুরিজীবী। কিছুদিন আগে তাঁকে চট্টগ্রাম থেকে বদলি হয়ে নারায়ণগঞ্জ যেতে হয়েছিল। ফলে আমার পরিবারের বাকি সদস্যদেরও নারায়ণগঞ্জ যেতে হবে। এমন অবস্থায় চট্টগ্রামে আমার কোন আত্মীয় স্বজনও নেই যে তাদের কাছে থেকে পড়াশোনা করবো। এমন অবস্থায় আপনার বিদ্যালয়ের ছাত্রাবাসের একটি আসন আমার খুবই প্রয়োজন।
অতএব বিনীত নিবেদন এই যে, উপরোক্ত কারণ বিবেচনা করে আমাকে আপনার বিদ্যালয়ে থেকে পড়াশোনার জন্য ছাত্রাবাসে একটি আসনের ব্যাবস্থা করে দিতে মহোদয়ের মর্জি হোক।

বিনীত নিবেদক
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্রী
শারমিন আক্তার
অষ্টম শ্রেণি
শাখা “ক”
রোল ২২

স্কুলে সুপেয় পানির ব্যবস্থা করার জন্য প্রধান শিক্ষকের নিকট দরখাস্ত লেখার নিয়ম

তারিখ: ৩রা আগস্ট ২০২২

বরাবর
প্রধান শিক্ষক
জামালপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় জামালপুর।
বিষয় : সুপেয় পানির ব্যবস্থা করার জন্য আবেদন।

মহোদয়,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমাদের স্কুলের টিউবওয়েলটি আর্সেনিকমুক্ত না হওয়ায় আমরা খাওয়ার পানির বিশেষ সংকটে আছি। এ অবস্থায় আমাদের স্কুলে দ্রুত একটি আর্সেনিকমুক্ত টিউবওয়েল স্থাপন করা দরকার।

অতএব, জনাবের নিকট বিনীত আবেদন, জরুরি ভিত্তিতে একটি আর্সেনিকমুক্ত টিউবওয়েল স্থাপন করে বাধিত করবেন।

বিনীত নিবেদক
জামালপুর স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের পক্ষে
শারমিন আক্তার
শ্রেণি: ৭ম
রোল: ০৫

উপবৃত্তির জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও নমুনা

তারিখ ২২-০৬-২০২২

বরাবর
প্রধান শিক্ষক
কুমিরা আবাসিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।
সীতাকুণ্ড চট্টগ্রাম।
বিষয়ঃ- উপবৃত্তির জন্য আবেদন।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির একজন নিয়মিত ছাত্রী। আমাদের পাঁচ ভাইবোনের পরিবারের একমাত্র কর্মক্ষম হলেন আমার বাবা। তিনি সামান্য বেতনে পিয়নের চাকরি করেন। এই স্বল্প বেতন থেকে সাংসারিক খরচের বাইরে আমার বই, খাতা, কলম, স্কুলের পোশাক এবং যাতায়াত খরচ চালাতে উনি অপারগ। এই অবস্থায় আমার পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়াটা অত্যন্ত কষ্টকর হয়ে যাচ্ছে।

অতএব, মহোদয়ের নিকট আকুল আবেদন উপরোক্ত কারণ বিবেচনা করে আমার পড়ালেখা চালিয়ে যাওয়ার স্বার্থে আমাকে স্কুল থেকে উপবৃত্তির টাকা প্রদান করতে মহোদয়ের মর্জি হোক।

বিনীত নিবেদক
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্রী
শারমিন আক্তার
অষ্টম শ্রেণি
শাখা “ক”
রোল ২২

বিনা বেতনে অধ্যয়নের জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও নমুনা

তারিখ ২২-০৬-২০২২
বরাবর
প্রধান শিক্ষক
কুমিরা আবাসিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।
সীতাকুণ্ড চট্টগ্রাম।
বিষয়ঃ- বিনা বেতনে অধ্যয়নের জন্য আবেদন।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির একজন নিয়মিত ছাত্রী। আমাদের পাঁচ ভাইবোনের পরিবারের একমাত্র কর্মক্ষম হলেন আমার বাবা। তিনি সামান্য বেতনে পিয়নের চাকরি করেন। ঐ স্বল্প বেতনে আমাদের সাংসারিক খরচের বাইরে গিয়ে বেতনসহ আমাদের সব ভাই বোনের পড়াশোনার খরচ চালাতে উনি অপারগ। এই অবস্থায় বেতন চালিয়ে পড়াশোনা করাটা আমার পক্ষে অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে।

অতএব, বিনীত নিবেদন আমাদের আর্থিক সংকটের বিষয়টা চিন্তা করে আমাকে আপনার বিদ্যালয়ে বিনা বেতনে অধ্যয়নের অনুমতি দিতে মহোদয়ের মর্জি হোক।

বিনীত নিবেদক,
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্রী
শারমিন আক্তার
অষ্টম শ্রেণি
শাখা “ক”
রোল ২

জরিমানা মওকুফের জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও নমুনা

তারিখ ২৭-০৬-২০২২

বরাবর
প্রধান শিক্ষক
কুমিরা আবাসিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।
সীতাকুণ্ড চট্টগ্রাম।
বিষয়ঃ- জরিমানা মওকুফের জন্য আবেদন।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির একজন নিয়মিত ছাত্রী। গত চার মাস যাবত আমাদের নানা আর্থিক সংকটের কারণে আমার মাসিক বেতন এবং পরিক্ষার ফিস সময়মতো জমা দিতে পারিনি। তাই স্কুল থেকে আমার বেতন এবং পরিক্ষার ফিসের উপর জরিমানা ধার্য করা হয়েছে। পূর্বের বেতন, পরিক্ষার ফিস এবং জরিমানা বাবদ যে টাকা ধরা হয়েছে তা পরিশোধ করা আমাদের নিন্মবিত্ত পরিবারের পক্ষে কষ্টসাধ্য।

অতএব, মহোদয়ের কাছে আকুল আবেদন আমাদের আর্থিক পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে জরিমানা মওকুফ করে শুধু বেতনের টাকা দেওয়ার অনুমতি প্রদান করতে মহোদয়ের মর্জি হোক।

বিনীত নিবেদক
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্রী
শারমিন আক্তার
অষ্টম শ্রেণি
শাখা ‘ক’
রেল ২২

আর্থিক সাহায্য পাওয়ার জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম

২২/০৩/২২

বরাবর
প্রধান শিক্ষক
এস. এ. উচ্চ বিদ্যালয়, দাড়িয়াপুর।
বিষয়: বিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ তহবিল থেকে আর্থিক সাহায্য পাওয়ার জন্য আবেদন।

মহোদয়,
বিনীত নিবেদন এই, আমি আপনার বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির একজন নিয়মিত ছাত্র। বিগত তিন বছর যাবৎ আমি এ বিদ্যাপীঠে পড়ালেখা করছি। পরীক্ষায় সব সময়ই আমি প্রথম হয়ে এক শ্রেণি থেকে অন্য শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হয়েছি। অষ্টম শ্রেণিতেও আমার রোল নম্বর ০১। আমার বাবা একজন দরিদ্র কৃষক। পরিবারের ভরণপোষণ ছাড়াও আমাদের তিন ভাইবোনের লেখাপড়ার খরচ চালাতে তিনি হিমশিম খান। তবুও তিনি এ যাবৎ বিদ্যালয়ের যাবতীয় পাওনা পরিশোধ করে আমাদের পড়ালেখার খরচ চালিয়ে আসছিলেন। সম্প্রতি তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ায় আমাদের লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যাবার উপক্রম হয়েছে। এ অবস্থায় বিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ তহবিল থেকে আর্থিক সাহায্য বরাদ্দ করে আমার লেখাপড়া চালিয়ে যাবার জন্য আকুল আবেদন জানাচ্ছি।

অতএব মহোদয়, আমার আবেদন মানবিকভাবে বিবেচনা করে আমাকে ছাত্রকল্যাণ তহবিল থেকে আর্থিক সাহায্যদানে বাধিত করবেন।

বিনীত নিবেদক
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্রী
শারমিন আক্তার
অষ্টম শ্রেণি
শাখা “ক”
রোল ২২

বিজ্ঞান ক্লাব’ গঠনের অনুমতির জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম

২২/০৩/২২

বরাবর
প্রধান শিক্ষক
নাকশালা জমিরউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়, সখীপুর।
বিষয় : ‘বিজ্ঞান ক্লাব’ গঠনের অনুমতির জন্য আবেদন।

মহোদয়,
সবিনয় নিবেদন এই যে, আমরা আপনার বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রী। বেশ কিছুদিন থেকে আমরা স্কুলে বিজ্ঞানচর্চার জন্য একটি বিজ্ঞান ক্লাবের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছি। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির এই চরম উৎকর্ষের যুগে বিজ্ঞানচর্চা ছাড়া শিক্ষা সম্পূর্ণ হয় না। আর বিজ্ঞান ক্লাব গঠন করা হলে বিজ্ঞান বিষয়ে আলোচনা, তথ্য আদান-প্রদান, পত্র-পত্রিকা প্রকাশ করা সম্ভব হবে। বিজ্ঞান বিষয়ে পড়াশোনা ও গবেষণা করে আমরা নতুন নতুন বিজ্ঞান প্রজেক্ট তৈরিতেও দ্রুত সফলতা অর্জন করব।

অতএব, মহোদয়ের নিকট বিনীত প্রার্থনা, আমাদের বিদ্যালয়ে একটি ‘বিজ্ঞান ক্লাব’ গঠনের অনুমতি ও প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা প্রদান করে বাধিত করবেন।

বিনীত নিবেদক
অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পক্ষে জমির উদ্দিন, উচ্চ বিদ্যালয়, সখীপুর।

৪র্থ (চতুর্থ) ঘণ্টার পর ক্লাস স্থগিতের জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম

তারিখ : ১৪ই আগস্ট ২০২২

বরাবর
প্রধান শিক্ষক
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল ও কলেজ সাভার, ঢাকা।
বিষয় : জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানের প্রস্তুতির জন্য ৪র্থ ঘণ্টার পর ক্লাস স্থগিতের জন্য আবেদন।

মহোদয়,
সম্মানপূর্বক নিবেদন এই যে, আমাদের বিদ্যালয়ে আগামীকাল ১৫ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালন করা হবে। শোক দিবসের অনুষ্ঠানের বিভিন্ন কাজ সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করার জন্য প্রতিটি শ্রেণিকেই কোনো না কোনো দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আমাদের ওপর দায়িত্ব পড়েছে মঞ্চসজ্জা। আগামীকালের শোক দিবসের সার্বিক কাজ সুসম্পন্ন করার জন্য আজ ৪র্থ ঘণ্টার পর ক্লাসসমূহ স্থগিত করলে ভালো হয়।

অতএব, জনাবের নিকট বিনীত আবেদন, ৪র্থ ঘণ্টার পর ক্লাসসমূহ স্থগিত করে বাধিত করবেন।

বিনীত নিবেদক
আপনার একান্ত বাধ্যগত ছাত্রী
শারমিন আক্তার
শ্রেণি: সপ্তম
রোল: ০৩
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল ও কলেজ এর শিক্ষার্থীদের পক্ষে।

স্কুলের ভেতরে ক্যান্টিন স্থাপনের জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম

তারিখ : ২০.৩.২০১২

বরাবর
প্রধান শিক্ষক
আইডিয়াল স্কুল মতিঝিল, ঢাকা।
বিষয় : স্কুলের ভেতরে ক্যান্টিন স্থাপনের আবেদন।

মহোদয়,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমরা আপনার স্কুলের অনাবাসিক ছাত্রছাত্রী। প্রতিদিন আমরা অনেক দূরদূরান্ত থেকে স্কুলে আসি। নানা কারণে অনেকের পক্ষে প্রতিদিন টিফিন আনা সম্ভব হয় না। স্কুলের টিফিন পিরিয়ডের স্বল্পতম সময়ে ক্যাম্পাসের বাইরে গিয়ে টিফিন কিনে আনা ছাত্রছাত্রীদের পক্ষে সম্ভব নয়। এ অবস্থায় স্কুল ক্যাম্পাসের ভেতরে একটা ক্যান্টিন স্থাপন করা হলে ছাত্রছাত্রীদের এ সমস্যা নিরসন হতে পারে।

অতএব মহোদয়ের কাছে প্রার্থনা যে, ছাত্রছাত্রীদের বৃহত্তর প্রয়োজনের কথা বিবেচনা করে স্কুল ক্যাম্পাসে একটি ক্যান্টিন স্থাপনের ব্যবস্থা গ্রহণ করলে আমরা বিশেষভাবে বাধিত হব।

বিনীত নিবেদক
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্রী
শারমিন আক্তার
অষ্টম শ্রেণি
শাখা “ক”
রোল ২২
শিক্ষার্থীদের পক্ষে,
অনাবাসিক ছাত্রছাত্রীবৃন্দ আইডিয়াল স্কুল

শিক্ষাসফরে যাওয়ার জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম

২২/০৩/২২

বরাবর
প্রধান শিক্ষক
গজারিয়া শাস্তিকুঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়, সখীপুর।
বিষয়: শিক্ষাসফরে প্রেরণের জন্য আবেদন।

মহোদয়,
সবিনয় নিবেদন এই যে, আমরা আপনার বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী। প্রতি বছর এই বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা শিক্ষাসফরে গিয়ে থাকে। কিন্তু এ বছর এখনো তার কোনো উদ্যোগ গৃহীত হয় নি। ছাত্রজীবনে শিক্ষাসফরের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। শিক্ষাসফরের ফলে ব্যবহারিক শিক্ষার সঙ্গে বাস্তব জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা আরও সমৃদ্ধ হয়। যেকোনো ভ্রমণেই দেশ ও দেশের মানুষকে ভালোভাবে জানার সুযোগ হয়।

আমরা এবার শিক্ষাসফরে ময়মনসিংহে যাওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করছি। ময়মনসিংহ প্রাচীন শহর। এর মুক্তাগাছা থানা শিক্ষা-সংস্কৃতিতে খুব অগ্রগামী ছিল। সেখানে প্রাচীন জমিদার বাড়ি আছে। ময়মনসিংহ শহরে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এসেছিলেন। সে স্মৃতিচিহ্নও দেখা যাবে। তাছাড়া কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, আনন্দমোহন কলেজ, জয়নুল আবেদিন সংগ্রহশালা ইত্যাদিও আমাদের আগ্রহের কেন্দ্রে রয়েছে। এসব স্থান ও স্থাপনা দর্শন করে আমরা বিশেষ জ্ঞান অর্জন করতে সক্ষম হব।

একদিনের এই সফরের সম্পূর্ণ ব্যয়তার আমরা বহন করব। আমাদের সঙ্গে দুজন সিনিয়র শিক্ষক যেতে রাজি হয়েছেন। আপনার সম্মতি পেলে শিক্ষাসফরে যাওয়ার দিন ধার্য করে আমরা আমাদের অভিভাবকদের অনুমতি গ্রহণ করব।

অতএব, মহোদয়ের কাছে বিনীত আবেদন, আমাদের শিক্ষাসফরে যাওয়ার সদয় অনুমতি দিয়ে এবং ময়মনসিংহে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা লাভের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করে বাধিত করবেন।

বিনীত নিবেদক
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্রী
শারমিন আক্তার
অষ্টম শ্রেণি
শাখা “ক”
রোল ২২
অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পক্ষে
সায়মা শতাব্দী গজারিয়া শান্তিকুঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়, সখীপুর।

ছাড়পত্রের জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও নমুনা

তারিখ;- ২৬/৮/২০২২
বরাবর
প্রধান শিক্ষক
কুমিরা আবাসিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।
সীতাকুণ্ড চট্টগ্রাম।
বিষয়ঃ- ছাড়পত্রের জন্য আবেদন।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির একজন নিয়মিত ছাত্রী। আমার বাবার চাকরি চট্টগ্রাম থেকে বদলি হয়ে নারায়ণগঞ্জ হওয়াতে আমাদের পরিবারের সবাইকে বাবার সাথে নারায়ণগঞ্জ শহরে থাকা অত্যাবশ্যকীয় হয়ে পড়েছে। এমন অবস্থায় এতো দুরত্বের ব্যবধানে আমার পক্ষে আপনার বিদ্যালয়ে পড়াশোনা করা অসম্ভব হয়ে যাচ্ছে।
অতএব, বিনীত নিবেদন, আমার সমস্যার কথা বিবেচনা করে আমাকে নতুন স্কুলে ভর্তি হওয়ার জন্য ছাড়পত্র দিতে মহোদয়ের মর্জি হোক।

বিনীত নিবেদক
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্রী
শারমিন আক্তার
অষ্টম শ্রেণি
শাখা ‘ক’
রোল ২২

প্রশংসাপত্রের জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম

তারিখ: ১৪/৬/২০২২

বরাবর
প্রধান শিক্ষক
জাহানারা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় বসুরহাট, কোম্পানীগঞ্জ, নোয়াখালী।
বিষয় : প্রশংসাপত্রের জন্য আবেদন।

জনাব,
সবিনয়ে নিবেদন এই যে, আমি আপনার স্কুলের একজন নিয়মিত ছাত্রী। ২০১৪ সালে কুমিল্লা বোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত এসএসসি পরীক্ষায় আমি জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছি। স্কুলে গত পাঁচ বছর অধ্যয়নকালে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে আমি সক্রিয়ভাবে জড়িত ছিলাম। কোনো আইনশৃঙ্খলা বিরোধী কাজের সঙ্গে আমার কোনো সম্পৃক্ততা ছিল না। আমি কলেজে উচ্চ-মাধ্যমিক শ্রেণিতে ভর্তি হতে ইচ্ছুক। তাই আপনার স্বাক্ষরিত একটি প্রশংসাপত্র অত্যন্ত প্রয়োজন।

অতএব অনুগ্রহপূর্বক আমাকে চারিত্রিক ও শিক্ষাবিষয়ক প্রশংসাপত্র প্রদান করে বাধিত করবেন।

বিনীত
আপনার একান্ত অনুগত
শারমিন আক্তার
এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ছাত্রী
সাল: ২০১৪
পরীক্ষার ক্রমিক নম্বর: ১৬৩৫৫৪
রেজিস্ট্রেশন নম্বর : ১৩২৭৩৫৪
শাখাঃ ব্যবসা
জাহানারা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়
কোম্পানীগঞ্জ, নোয়াখালী ।

চাকরির জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও উদাহরণ

তারিখঃ- ২৮-০৬-২০২২
বরাবর
অধ্যক্ষ
কুমিরা আবাসিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।
সীতাকুণ্ড চট্টগ্রাম।
বিষয়ঃ- সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য আবেদন।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, গত ২৭-০৬-২০২২ ইং তারিখে দৈনিক কালের কণ্ঠ পত্রিকার বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানতে পারলাম যে, আপনার স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। আমি উক্ত প্রতিষ্ঠানের একজন আগ্রহী প্রার্থী হিসেবে আপনার সদয় বিবেচনার জন্য নিন্মে আমার যোগ্যতা সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্যাবলী উপস্থাপন করলাম।

নামঃ-শারমিন আক্তার।
পিতাঃ- মোঃ শাহজাহান।
মাতাঃ- শামছুন্ নাহার।
স্থায়ী ঠিকানাঃ- লক্ষ্মীপুর।
বর্তমান ঠিকানাঃ- সীতাকুণ্ড চট্টগ্রাম।
জন্মতারিখঃ- ১৪-০২-১৯৯৭
জাতীয়তাঃ- বাংলাদেশী।
ধর্মঃ- ইসলাম।
মোবাইলঃ- ০১৭৬*
শিক্ষাগত যোগ্যতা “এম এ”

এরপর আপনার এসএসসি, এইচএসসি, বিএ, এম’এ এর সাটিফিকেট সংযুক্ত করে দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবিসহ একটি সুন্দর খামে করে প্রতিষ্ঠানের ঠিকানায় পাঠাতে হবে।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম

তারিখ : ২৪.৭.২০১২

বরাবর
মহাপরিচালক
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর
মিরপুর, ঢাকা।
বিষয় : প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পদে নিয়োগের আবেদন।

মহোদয়,
সবিনয়ে নিবেদন এই যে, গত ১৬ই জুন ২০১২ তারিখে দৈনিক ‘জনকণ্ঠ’ পত্রিকায় প্রকাশিত বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানতে পারলাম যে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পদে লোক নিয়োগ করা হবে। আমি উক্ত পদের

একজন প্রার্থী হিসেবে আবেদন করছি। নিম্নে আমার শিক্ষাগত যোগ্যতাসহ জীবনবৃত্তান্ত উল্লেখ করা হলো :

১. নাম : শারমিন আক্তার
২. পিতার নাম : কাজী শামসুদ্দিন আহমেদ।
৩. মাতার নাম : বেগম হাফিজা সুলতানা
৪. স্থায়ী ও বর্তমান ঠিকানা : ফজলুল হক মুন্সী বাড়ি, গ্রাম: ডুমুরখালি, পোস্ট: ঝিকরগাছা, জেলা : যশোর।
৫. জন্ম তারিখ: ২৮শে মে, ১৯৯২
৬. জাতীয়তা : বাংলাদেশি
৭. ধর্ম: ইসলাম
৮. শিক্ষাগত যোগ্যতার বিবরণ :

পরীক্ষার নাম
পাশের সাল
জিপিএ
বিভাগ
বোর্ড
এসএসসি
২০১৪
৫.০০
বিজ্ঞান
যশোর
এইচএসসি
২০১৬
৫.০০
বিজ্ঞান
যশোর
স্নাতক
২০২০
৩.৪৫
রসায়ন
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়
অতএব, উপর্যুক্ত তথ্যাবলির আলোকে অনুগ্রহপূর্বক আমাকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য বিবেচনা করলে বাধিত হব।

বিনীত নিবেদক
শারমিন আক্তার

সংযুক্তি :
১. সনদপত্রের সত্যায়িত অনুলিপি- ৩ কপি
২. নাগরিকত্ব ও চারিত্রিক সনদ – ২ কপি
৩. সত্যায়িত পাসপোর্ট সাইজ ছবি- ৩ কপি ।

চেয়ারম্যান বরাবর দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও নমুনা

এবার আলোচনা করবো ইউনিয়ন চেয়ারম্যান বরাবর দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও নমুনা, উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবর দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও নমুনা।

উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবর দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও নমুনা

তারিখ ২৮-০৬-২০২২

বরাবর
উপজেলা চেয়ারম্যান।
সীতাকুণ্ড উপজেলা, চট্টগ্রাম।
বিষয়ঃ- গ্রামে নলকূপ স্থাপনের জন্য আবেদন।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমরা আপনার উপজেলার ৫ নং ওয়ার্ডের গোপালপুর গ্রামের বাসিন্দা। আমাদের গ্রামটি একটি ঘনবসতিপূর্ণ দরিদ্র গ্রাম। বর্তমানে এখানকার প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে বিশুদ্ধ পানির অভাব। যার ফলে গ্রামের লোকজন হরহামেশাই বিভিন্ন পানি বাহিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। গভীর নলকূপের অভাবে এখানকার বেশিরভাগ নলকূপের পানিই আর্সেনিকযুক্ত। সেই সাথে গ্রীষ্মকালে বেশিরভাগ নলকূপেই পানি না ওঠার মতো ভোগান্তিতে পড়তে হয় গ্রামবাসীকে।

এমন অবস্থায় ৫ নং ওয়ার্ডের গোলাপপুর গ্রামের কেন্দ্রবিন্দুতে একটি গভীর আর্সেনিকমুক্ত, বিশুদ্ধ পানির টিউবওয়েল স্থাপন করা অতীব জরুরি হয়ে পড়েছে।

অতএব, বিনীত নিবেদন আমাদের পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে গোলাপপুর গ্রামের কেন্দ্রবিন্দুতে একটি নলকূপ স্থাপন করে গ্রামবাসীর সার্বিক উন্নয়নে অবদান রাখতে মহোদয়ের মর্জি হোক।

গোলাপপুর গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে।
সাক্ষর ১
সাক্ষর ২
সাক্ষর ৩
সাক্ষর ৪
সাক্ষর ৫

পুকুর সংস্কারের জন্য আবেদন জানিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছে দরখাস্ত লেখার নিয়ম

তারিখ : ১২ই মার্চ ২০২২

বরাবর
চেয়ারম্যান
ধানগড়া ইউনিয়ন পরিষদ
সিরাজগঞ্জ
বিষয় : ধানগড়া রামেন্দ্র পুকুর সংস্কারের জন্য আবেদন ।

জনাব,
সবিনয়ে নিবেদন এই যে, ধানগড়া গ্রামের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত সরকারি রামেন্দ্র পুকুরটি দীর্ঘদিন যাবৎ হাজামজা হয়ে পড়ে আছে। বহুদিন অব্যবহৃত থাকায় পুকুরটিতে ময়লা-আবর্জনা ও কচুরিপানার জঙ্গলে পরিণত হয়েছে। ফলে এটি যেমন মশামাছি, সাপখোপের আখড়ায় পরিণত হয়েছে, তেমনি এলাকায় বাতাসে দুর্গন্ধও ছড়িয়ে পড়েছে। অথচ এ পুকুরটি সংস্কার করে সেখানে মৎস্য চাষ করা হলে সরকার যেমন আর্থিকভাবে লাভবান হতে পারে, তেমনি এলাকার পরিবেশও নির্মল হবে। অতএব জনস্বার্থ বিবেচনা করে ধানগড়া রামেন্দ্র পুকুরটি আশু সংস্কারের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।

বিনীত নিবেদক
এলাকাবাসীর পক্ষে, আপনার বিশ্বস্ত
শারমিন আক্তার
ধানগড়া, সিরাজগঞ্জ।

এলাকায় পাঠাগার স্থাপনের জন্য উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে দরখাস্ত লেখার নিয়ম

তারিখ : ২রা জুন ২০২২
বরাবর
উপজেলা চেয়ারম্যান
গোদাগাড়ী উপজেলা পরিষদ
রাজশাহী।
বিষয় : গোদাগাড়ী পূর্বপাড়ায় একটি পাঠাগার স্থাপনের জন্য আবেদন।

মহোদয়,
সম্মানপূর্বক বিনীত নিবেদন এই যে, আমাদের গোদাগাড়ী পূর্বপাড়ায় হাইস্কুল ও প্রাইমারি স্কুলের ছাত্রছাত্রীসহ জনসংখ্যা প্রায় দুই হাজারের ওপরে। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয় হচ্ছে, এখানে কোনো পাঠাগার নেই। ছাত্র ছাত্রীদের জ্ঞানচর্চা, মানসগঠন ও সৃজনশীল চেতনা বিকাশে একটি পাঠাগার খুবই প্রয়োজন। এ ছাড়া এলাকায় দৈনিক পত্রিকা ও সাময়িক পত্র-পত্রিকা পড়ারও কোনো ব্যবস্থা নেই। এখানে একটি পাঠাগার হলে তরুণরাও তাদের অলস সময়কে জ্ঞানচর্চার মতো প্রয়োজনীয় কাজে ব্যয় করতে পারবে।

অতএব, গোদাগাড়ী পূর্বপাড়ায় সব বয়সের জনসাধারণের উপকারের কথা বিবেচনা করে অতিসত্ত্বর এখানে একটি পাঠাগার স্থাপনের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আপনাকে বিশেষভাবে অনুরোধ জানাচ্ছি।

নিবেদক
গোদাগাড়ী পূর্বপাড়ার জনসাধারণের পক্ষে
শারমিন আক্তার

ইউনিয়ন চেয়ারম্যান বরাবর দরখাস্ত লেখার নিয়ম

এবার আলোচনা করবো ইউনিয়ন চেয়ারম্যান বরাবর দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও নমুনা নিয়ে।

ভাঙ্গা রাস্তা সংস্কারের জন্য ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এর কাছে দরখাস্ত লেখার নিয়ম

তারিখ : ১২ই মার্চ ২০২২
বরাবর
চেয়ারম্যান
ধানগড়া ইউনিয়ন পরিষদ
সিরাজগঞ্জ
বিষয়: রাস্তা সংস্কারের জন্য আবেদন।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমরা আপনার নির্বাচনী এলাকা ধানগড়া ইউনিয়ন পরিষদের ধোবাউড়া গ্রামের ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা। অত্যন্ত দুঃখের সাথে জানানো যাচ্ছে যে, আমাদের এলাকার অন্যতম প্রধান রাস্তা যেটি ধোবাউড়া গ্রাম থেকে ধানগড়া বাজার পর্যন্ত গিয়েছে। রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরে ভাঙ্গা অবস্থায় রয়েছে। অনেকদিন ধরে মেরামত না করার জন্য রাস্তাটি চলাচলের কোন অনপযোগী হয়ে গিয়েছে। গ্রামের শিক্ষার্থীদের স্কুলে যাতায়াত, কর্মজীবী লোকদের অফিস যাওয়া , এমন কি নারীদের চলাচলের অসুবিধা সৃষ্টি হয়েছে। কোন রোগী অসুস্থ হলে তাকে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য এই রাস্তাটি ব্যবহার করা হয়। কিন্তু রাস্তাটির অবস্থা খুব খারাপ হওয়ার জন্য রোগীকে হাসপাতালে নিতে দেরি হয় এবং রোগীর প্রাণনাশের আশঙ্কা থেকে যায়। রাস্তাটি অতি দ্রত মেরামত করা হলে আমাদের এলাকার প্রায় দুই হাজার মানুষের যাতায়াতের সুবিধা হত।

অতএব, মহোদয়ের কাছে আমাদের আকুল আবেদন যে, তাতে যতদ্রুত সম্ভব মেরামত করে আমাদেরকে বাধিত করবেন।

বিনীত নিবেদক,
ধোবাউড়া গ্রামবাসীর পক্ষে
শারমিন আক্তার।

আর্সেনিকমুক্ত পানির জন্য মেয়র কাছে দরখাস্ত লেখার নিয়ম

তারিখ : ১১.০১.২০১২

বরাবর
পৌরসভা মেয়র
ফুলবাড়িয়া পৌরসভা
ময়মনসিংহ।
বিষয় : আর্সেনিকমুক্ত পানি সরবরাহের আবেদন।

জনাব,
সবিনয়ে নিবেদন এই যে, আমরা ফুলবাড়িয়া পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের অধিবাসী। এই এলাকা খুবই ঘনবসতিপূর্ণ। কয়েকটি গার্মেন্টস, পৌর-বাণিজ্যবিতানসহ বেশ কয়েকটি কারখানা থাকায় এই এলাকা ফুলবাড়িয়া পৌরসভার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্থান হিসেবে পরিচিত। সম্প্রতি জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগ জরিপ চালিয়ে এলাকার অধিকাংশ চাপাকলের পানিতে ভয়াবহ আর্সেনিকের দূষণ আছে বলে প্রমাণ পেয়েছেন। আর্সেনিকযুক্ত চাপাকলগুলোতে লাল রং দিয়ে শনাক্ত করে এগুলোর পানি পান না করার জন্য এলাকার মানুষদের সতর্ক করে দিয়েছেন। তবু অজ্ঞতাবশত অনেক মানুষ আর্সেনিকযুক্ত পানি ব্যবহার করে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে বসবাস করছে। এলাকায় বর্তমানে বিশুদ্ধ পানীয় জলের তীব্র অভাব বিরাজ করছে। তাই অতিসত্বর আর্সেনিকযুক্ত পানি সরবরাহ করা দরকার। অতএব মহোদয়ের সমীপে বিনীত আবেদন, আর্সেনিকমুক্ত পানি সরবরাহের ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে এলাকাবাসীকে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকির হাত থেকে রক্ষা করবেন। এটি একটি জনগুরুত্বপূর্ণ জরুরি বিষয়। তাই জরুরিভিত্তিতে পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন।

বিনীত নিবেদক
ফুলবাড়িয়া পৌরবাসীর পক্ষে
শারমিন আক্তার

জেলা প্রশাসকের কাছে দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও উদাহরণ

তারিখ ২৮-০৬-২০২২

বরাবর
জেলা প্রশাসক
চন্দ্রগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর
বিষয়ঃ- খালের উপর সেতু নির্মাণের জন্য আবেদন।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমরা আপনার জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানার বাসিন্দা। এটি একটি ঘনবসতিপূর্ণ উপজেলা। বর্তমানে এখানকার প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে একটি খাল। খালটির দুই পাড়েই শত শত মানুষের বসবাস। নিয়মিত খালের দুই পাড়ে যোগাযোগের জন্য একপাড়ের মানুষকে অন্য পাড়ে যেতে হয়। ফলে খালের উপর তৈরি হয়েছে বেশ কয়েকটা ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের দুর্বল সাঁকো। আর এই সাঁকো পার হতে গিয়ে বেশিরভাগ সময়ই অসাবধানতায় শিশু এবং বৃদ্ধরা পড়ছে জীবন ঝুঁকিতে।

অতএব মহোদয়ের কাছে বিনীত নিবেদন আমাদের পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে শিশু বৃদ্ধদের জীবন ঝুঁকি এড়াতে উক্ত খালের উপর দিয়ে একটা মজবুত সেতু তৈরি করে জনকল্যাণে নিজেকে নিয়োজিত করার জন্য মহোদয়ের মর্জি হোক।

নিবেদক,
চন্দ্রগঞ্জ উপজেলার পক্ষ থেকে
সাক্ষর ১
সাক্ষর ২
সাক্ষর ৩
সাক্ষর ৪
সাক্ষর ৫

ইউএনও এর কাছে দরখাস্ত লেখার নিয়ম

তারিখ : ১২ই মার্চ ২০২২

বরাবর
ইউএনও বগুড়া উপজেলা পরিষদ, বগুড়া সদর।
বিষয়: বাজারে পয়:নিষ্কাশন ব্যবস্থা করার জন্য আবেদন।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমরা বগুড়া উপজেলার আপনার দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা পরিষদের স্থানীয় বাসিন্দা। আপনি জেনে অবগত আছেন যে, আমাদের অত্র এলাকার একটি মাত্র বাজারই কাছে রয়েছে। অন্য দুটো বাজারগুলো বগুড়া থেকে দূরে। এর ফলে দেখা যায় যে গ্রামের অধিকাংশ লোক বগুড়া সদর বাজারে কেনাকাটা করে থাকে।

কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় যে, এত বড় বাজারে ভালো কোন পয়:নিষ্কাশন ব্যবস্থা নেই। আর ফলে মানুষজন যেখানে সেখানে নিজেদের প্রাকৃতিক কাজ সেরে থাকে। বিশেষ করে সপ্তাহে যেদিন হাট বসে, সেদিন দূরদূরান্ত থেকে অনেক মানুষ আসে তারা ভালো কোন ব্যবস্থা না পেয়ে হতাশা প্রকাশ করেন। নারীদের ক্ষেত্রে ভোগান্তি আরো অনেক চরমে পৌঁছায়। আর তাই যতদ্রুত সম্ভব বাজারে অতি আধুনিক কয়েকটি টয়লেট স্থাপন করা প্রয়োজন।

অতএব, মহোদয়ের নিকট আমাদের আকুল আবেদন এই যে, উপর্যক্ত বিষয়টি যত দ্রুত সম্ভব আমলে নিয়ে এর সমাধান করলে কৃতজ্ঞ থাকব।

বিনীত নিবেদক,
বগুড়া সদর উপজেলাবাসীর পক্ষে
শারমিন আক্তার
লেখাঃ- শারমিন আক্তার শ্রাবণ।

পুলিশের কাছে অভিযোগ নিয়ে দরখাস্ত লেখার নিয়ম

বরাবর,
অফিসার ইনচার্জ
খালিয়াজুড়ি থানা, নেত্রকোনা।
বিষয়: অতর্কিত হামলা এবং প্রাণনাশের হুমকি বিষয়ে অভিযোগ প্রসঙ্গে।

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি শারমিন আক্তার,পিতা- মোঃ খবির উদ্দিন। গ্রাম: পশ্চিম হাবড়াবাড়ি, থানাঃ খালিয়াজুড়ি, জেলাঃ নেত্রকোনা। থানায় এসে এই মর্মে লিখিতভাবে জানাচ্ছি যে, বাদী নাম: আব্বাস আলী, পিতা: আক্কাস আলী, গ্রাম: হাবড়া বাড়ি, থানা: খালিয়াজুড়ি, জেলা: নেত্রকোনা। গত ২২-০৮ ২০২২ইং আনুমানিক দুপুর ২.৩০ ঘটিকার সময় আমার বাড়িতে এসে আমাকে এবং আমার পরিবারের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। সেই সাথে আমাদেরকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। তার সাথে তার সহকারী হিসেবে তার দুই পুত্র ছিল। এমতাবস্থায় আমি আমার পরিবার নিয়ে নিরাপত্তা সংকটে এবং ভবিষ্যতে প্রাণনাশের আশঙ্কায় নিরাপত্তার অভাববোধ করতেছি।

অতএব, উপর্যুক্ত অভিযোগটি গুরুত্বের সাথে নিয়ে তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করিয়া কৃতজ্ঞতায় বাধিত করিবেন।

নিবেদক
শারমিন আক্তার
গ্রাম: পশ্চিম হাবড়াবাড়ি
থানাঃ খালিয়াজুড়ি
জেলাঃ নেত্রকোনা।
মোবাইল: ০১****৫৭৫৬৭

দরখাস্ত লেখার নিয়ম pdf

Leave a Comment

Your email address will not be published.