মেয়ে পটানোর মেসেজ ।মেয়ে পটানোর মিষ্টি কথা

মেয়ে পটানোর মেসেজ

মেয়ে পটানোর মেসেজ – মেয়ে পটাতে চান? আমাদের জীবনের এমন একটা সময় থাকে যখন আমরা আমাদের বিপরীত লিঙ্গের প্রতি সবচেয়ে বেশী আকৃষ্ট হয়ে থাকে৷ এবং এই সময়টাকে বলা হয়ে থাকে যৌবন৷ 

পুরুষদের ক্ষেত্রে, মেয়েদের প্রতি আলাদা এক ধরণের আগ্রহ কাজ করে এই সময়টায়৷ সে কারণে অনেকে মেয়ে পটানোর উপায় খুজে বেড়ান৷ 

ম্যাসেজ দেওয়ার পরিকল্পনা করে থাকেন অনেকেই৷ কিন্তু সবার কি আর মেসেজ লেখার ক্রিয়েটিভিটি থাকে? আর তাই অনেকে ইন্টারনেট হাতরে বেড়ান! 

চিন্তার কোনো কারণ নেই৷ আমাদের আজকের আর্টিকেলটি মূলত মেয়ে পটানোর মেসেজ নিয়ে৷ চলুন – এমনই কিছু মেসেজ দেখে নেওয়া যাক! 

মেয়ে পটানোর মেসেজ দেখে নিন! 

ম্যাসেজ-১ঃ 

তুমি কি আমার হাসি মুখের আবার কারণ হবে? 

কথা দিলাম, এই হাসি কোনোদিন মুছতে দেবো না! 

ম্যাসেজ-২ঃ

মিষ্টি কথা বলে মন ভরিয়ে দিলে গো আমায়

ডুবতে চাই আমি তোমার ভালোবাসায়৷ 

ম্যাসেজ-৩ঃ

কেনো আজ আকাশ-বাতাস উন্মাদ করে আমার জীবনে এলে? 

কেনো আজ সিক্ত বাতাসে,মলিন চেহারায় ছেড়ে চলে গেলে? 

ম্যাসেজ-৪ঃ

আমি তোমার শরীরে ক্রমোজোম হয়ে থাকতে চাই,

তোমার ঋতুর সাথে শ্লেষ্মার মতো ঝড়তে চাই,

আমি শুধু তোমাকেই চাই! 

ম্যাসেজ-৫

তোমাকে পুতুলের মতো সাজিয়ে আমার হৃদয়ের কোঠরে রাখবো,

আর নন্দিদ বাধনের শিহরনে রঙধনু সাজিয়ে রাখবো! 

ম্যাসেজ-৬ঃ

আমি তো কোনো দিনই প্রেমে পড়ি, প্রেমের পেছনে ছুটিনি 

কেননা জানিনা প্রেমই আমার পেছনে ছুটেছে! 

মেয়ে পটানোর মিষ্টি কথা – যে কথা শুনে মেয়ে পটে যাবেই! 

মেয়ে পটানোর মেসেজ

মেয়ে পটানোর জন্য মিষ্টি কথা বললেই  তো হবে না৷ কিছু ট্রিকস আছে যা আপনার আয়ত্ত্ব করতে হবে৷ যেমনঃ মেয়েদের সাথে আগে ঝগড়া করতে হবে প্রচুর৷ এরপর তার মন ভাঙানোর জন্য মিষ্টি-মিষ্টি কথা বলতে হবে৷ 

প্রথমে সেই মেয়েকে আপু-আপু বলে সম্বোধন করতে হবে৷ যেমনঃ

-আপু আপু! আই এম এক্সট্রেমলি সরি! আপু প্লিজ আপনি মাইন্ড করবেন না৷ 

নিজেকে সব সময় স্মার্টভাবে প্রিটেন্ড করার চেষ্টা করুন৷ আর আপনি যদি নিজকে স্মার্টভাবে উপস্থাপন করতে না পারেন তাহলে আপনি ফ্লপ খাবেন৷ এরপর থেকে মিষ্টি মিষ্টি কথা বলুন৷ যেমনঃ

মিষ্টি কথা-১ঃ

আর করবো বলুন! আমি হলো হরমোনাল রোবট! নারীদের প্রতি আকর্ষন হওয়াই তো আমার ধর্ম।

মিষ্টি কথা-২ঃ

মেয়ে, আমি তোমাকে পুতুলের মতো সাজিয়ে আমার হৃদয়ের কোঠরে রেখে দিবো৷ আর সেই হৃদয়ে চোখ মেলে তাকিয়ে তোমায় সাড়াটা জীবন ভরে দেখবো৷ তোমার ভাবনার করিডরে আমি সাড়াদিন হাটবো,আর তোমাকে নিয়ে ভাববো! তোমার ওই নন্দিত বাধনের শিহরন আমার দুচোখের জানালায় জাগে! একটি বার বলো… তুমি কি আমার হবে? 

এটিকে মেয়ে পটানোর মেসেজ হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন৷ যদিও এটি মেয়ে পটানোর মিষ্টি কথা হিসেবে সবচেয়ে বেশী ব্যবহৃত হয়ে থাকে৷

মিষ্টি কথা-৩ঃ

মেয়ে তুমি চোখে মাইখো না… তুমি কানে ঝুমকার দুল পইড়ো না,কেননা আমি তোমার চোখে পাগল হতে চাই৷ 

মিষ্টি কথা-৪ঃ

আমি তোমার শিরায় শিরায় বইতে চাই,জীবনের সব ক্যাসিনো কেবল তোমার সাথেই হারতে চাই৷ কোনো আলকেমির ন্যাকামো নয়, আমি তোমাকে চাই, তোমাকেই শিখতে চাই! 

মিষ্টি কথা-৫ঃ

আচ্ছা তুমি এমন করে তাকাও কেনো?এমন করে রিনা ব্রাউনের মতো ঘাড় ঘোরাও কেনো বলোতো? মনে হয় যেনো পায়ের নিচের মাটি সড়ে যায়৷ 

মেয়ে পটানোর টিপস গুলো দেখে নিন! 

মেয়ে পটানোর মেসেজ

মেয়েদের পটাতে হলে খুব মিষ্টি-মিষ্টি কথা বলতে হয়৷ মিষ্টি-মিষ্টি ম্যাসেজ দিতে হয়৷ এমনভাবে নিজের ভালোবাসা প্রকাশ করার চেষ্টা করুন যেনো তার ভেতরে কোনো কৃত্তিমতা না থাকে৷ কেননা কৃত্তিমতা থাকলে মেয়ে পটে না৷ 

গিফট দিন৷ যদি ট্যাকে টাকা না থাকে তাহলে ফুল দিন৷ ফুল দিলে মেয়েরা খুশী হয়ে যায়৷ 

মেয়েদের নিয়ে ভালো-ভালো কথা বলুন৷ নিজেকে স্মার্টভাবে প্রিটেন্ড করার মাধ্যমে আপনি একটি মেয়েকে অনায়াসে পটিয়ে ফেলতে পারেন৷ 

কখনো এডাল্ট কথা-বার্তা বলবেন না৷ এতে মেয়েরা বিরক্ত হয়ে যেতে পারে৷ কেননা মেয়েদের এসব নিয়ে খুব একটা ইন্টারেস্ট থাকে না৷ কাজেই এইসব অবান্তর কথা বার্তা বলবেন না৷ 

আপনি যদি ভালো স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন তাহলে আপনার ক্রাশকে নিয়মিত নোটস দিন৷ এতে করে মেয়েরা খুশী হয়ে যেতে পারে৷ বলা যায় না পটে গিয়ে, আপনার সাথে বিয়েও ঠিক করে ফেলতে পারে৷ 

কোনো অবস্থাতেই মেয়েদের উত্তক্ত করবেন না৷ এতে মেয়েরা রেগে যেতে পারে৷ কাজেই সাবধান! মান ধরে ডাকুন৷ এতে মেয়েরা খুশী হয়৷ 

প্রথম-প্রথম এমন ভাব করবেন না যে আপনি মেয়েটাকে খুব প্রায়ারুটি দিচ্ছেন৷ এটি দেওয়া উচিতও না৷ 

সবশেষে কিছু কথা যা আপনার জানা প্রয়োজনঃ যদিও আমাদের আজকের আর্টিকেলের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় ছিলো মেয়ে পটানোর মেসেজ নিয়ে৷ তবে কিছু বিষয় আপনার জেনে রাখা উচিত৷ 

মেয়ে পটানোর আগে আপনার অবশ্যই মেয়ের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে জেনে রাখা প্রয়োজন৷ কেননা একটি চরিত্রহীন মেয়ে আপনার জীবনে বিপদ ডেকে আনতে পারে৷ 

কিছু কিছু ছেলে থাকে, একটা মেয়ে খারাপ জানা সর্তেও তাকে মন দিয়ে ভালোবাসে৷ কিন্তু খবরদার! এই ভয়ানক ভালোবাসায় জড়াবেন না। এতে করে আপনি বিপদে পড়বেন৷ 

ইসলামের দৃষ্টিকোন থেকে প্রেম করা,  বা রিলেশনে জড়ানো বা মেয়ে পটানো হারাম। এগুলো ইসলামী দৃষ্টিকোন থেকে সম্পূর্ন নিষিদ্ধ৷ 

বিবাহ বহির্ভূত সকল ধরণের সম্পর্কই ইসলামে হারাম৷ কাজেই কখনো রিলেশনে জড়াবেন না৷ কেননা এর ফলে আপনাকে জাহান্নামের আগুনে পুড়তে হবে অনন্ত কালের জন্য৷ আপনি প্রেমটাকে অনেক হাল্কা ভাবে নিচ্ছেন, কিন্তু এর ফলে আপনি জেনায় জড়িয়ে যাচ্ছেন৷ 

আমরা যেটাকে বলি ক্রাশ, সেটাকে রাসুল পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন চোখের জেনা,এবং তিনি আমাদের এখান থেকে বেচে থাকতে বলেছেন৷ 

কোনো অবস্থাতেই মেয়ে বশীকরণের উদ্দ্যেশে কবিরাজের কাছে যাবেন না – কেননা এরা সকলেই ভন্ড৷ 

আমাদের আজকের আর্টিকেলের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় ছিলো মেয়ে পটানোর মেসেজ সম্পর্কে৷ কিন্তু সাবধান! চরিত্রহীন মেয়েদের ফাদে পা দিয়ে জীবন হারাবেন না – নিজের মায়ের কোল খালি করবেন না৷

পাদ কয় প্রকার ও কি কি? পাদ নিয়ে রম্য রচনা

কক্সবাজারের দর্শনীয় স্থান সমূহ

বাক্য কাকে বলে?বাক্য কত প্রকার ও কী কী ? 

অর্থনীতি কাকে বলে? অর্থনীতির জনক কে ? 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *