অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করার নিয়ম, আবেদন ও যাচাইকরণ

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করার নিয়ম, আবেদন ও যাচাইকরণ

বর্তমান জন্ম নিবন্ধন একটি অতি দরকারী এবং প্রয়োজনীয় দলিল। জন্ম নিবন্ধন অনেক ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্রের কাজ করে। যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র নেই তাদের ক্ষেত্রে জন্ম নিবন্ধনই জাতীয় পরিচয়পত্র হিসেবে ধরা হয়।

অনেক সময় দেখা যায় যে বিভিন্ন দরকারে জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করতে হয়। সঠিক নিয়ম না জানার কারণে বিভিন্ন জায়গায় দৌড়াদৌড়ি করতে সময় অপচয় করে ফেলেন। অথচ জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করার নিয়ম জানা থাকলে, আপনি খুব সহজেই আপনার জন্য বাংলা জন্ম নিবন্ধনকে ইংরেজিতে রূপান্তর করতে পারবেন।

আজকে আমরা জানবো কিভাবে বাংলা জন্ম নিবন্ধনকে ইংরেজিতে রূপান্তর করবেন।

জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি কেন করবেন?

জন্ম নিবন্ধন সনদ ইংরেজিতে হওয়া বাধ্যতামূলক না থাকলেও এখন আপনার জন্ম নিবন্ধনের তথ্য বাংলার পাশাপাশি ইংরেজিতে থাকা অবশ্যই প্রয়োজনীয়। বিভিন্ন প্রয়োজনে জন্ম নিবন্ধন সনদ ইংরেজির প্রয়োজন হলেও এখন বাংলার পাশাপাশি ইংরেজি জন্ম নিবন্ধন করা আপনার জন্য বাধ্যতামূলক।

ইংরেজি একটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা। বাংলা ভাষায় ব্যবহৃত কাগজপত্র শুধুমাত্র বাংলাদেশে ব্যবহার উপযোগী। দেশের বাইরে কোন কাজ করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে ইংরেজি ভাষায় আপনার কাগজপত্র গুলো অনুবাদ করা থাকতে হবে। তাই বর্তমান সময়ে বাংলা ভাষার পাশাপাশি ইংরেজি ভাষাতেও জন্ম নিবন্ধন দেয়া হচ্ছে।

বর্তমানে বিভিন্ন নাগরিক সেবা পেতে অবশ্যই জন্ম সনদ ডিজিটাল বা অনলাইন হওয়া বাধ্যতামূলক। পাশাপাশি বাংলা ও ইংরেজি তথ্য ও জন্ম নিবন্ধন ডাটাবেইজে থাকতে হবে। যদি আপনার নিবন্ধন কপিটি হাতে লেখা হয়ে থাকে, এখনি আপনার সনদটি ডিজিটাল করে নেয়া উচিত। জন্ম নিবন্ধন তথ্য ইংরেজিতে করা যে কারণে জরুরী তা হলো।

তথ্যসমূহ ইংরেজিতে না থাকলে, ভবিষ্যতে আপনার সন্তানের জন্ম নিবন্ধন করতে গেলে, তার পিতা-মাতার নাম ইংরেজিতে আসবেনা। বিদেশ গমন, ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে ভর্তি, ছোটদের পাসপোর্ট কিংবা ভিসা পেতে বা ইংরেজি তথ্য বাধ্যতামূলক এমন কোথাও জন্ম নিবন্ধন সাবমিট করতে গেলে নিবন্ধন ইংরেজিতে থাকা প্রয়োজন।

তাহলে আপনারা এবার বুঝতেই পারছেন কেন জন্ম নিবন্ধন ইংরেজিতে থাকা জরুরি।

আরো পড়ুন;- পুরাতন জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করার নিয়ম ও আবেদনের সহজ পদ্ধতি

জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি যাচাই

আপনার জন্মনিবন্ধন ইংরেজিতে করা আছে কিনা সেটি জানা জরুরী। আপনার জন্ম নিবন্ধন যদি ইংরেজি করা থাকে তাহলে আর নতুন করে ইংরেজি করার প্রয়োজন নেই। আর যদি ইংরেজি করা না থাকে তাহলে অবশ্যই ইংরেজি করতে হবে।

এখন আপনি কিভাবে জানবেন যে আপনার জন্মদিন ইংরেজি করা আছে কিনা। এর জন্য অবশ্য একটি পদ্ধতি আছে যা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে চেক করতে হবে।

চেক করার পদ্ধতির নিচে বর্ণনা করা হলো:

  • অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সনদ যাচাই করার জন্য প্রথমে আপনাদের অনলাইন জন্ম নিবন্ধন তথ্য ব্যবস্থা বা Online BRIS ওয়েবসাইটটিতে যেতে হবে। আপনারা https://everify.bdris.gov.bd/ এই লিংকে ক্লিক করে ওয়েবসাইটটিতে প্রবেশ করুন।
  • ওয়েবসাইটটিতে প্রবেশ করলে আপনারা একটি ফর্ম অর্থাৎ জন্ম নিবন্ধন যাচাই ফরম দেখতে পারবেন।
  • এরপর আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদটি হাতে নিন। জন্ম নিবন্ধন সনদটিতে থাকা ১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন নম্বরগুলো ফর্মটির ১ম বক্সে অর্থাৎ Birth Registration Number বক্সে লিখুন।
  • এরপর ফর্মটির ২য় বক্সে অর্থাৎ Date of birth বক্সে আপনার জন্ম তারিখ লিখুন (প্রথমে জন্ম তারিখের বছর তারপর মাস তারপর তারিখ দিবেন।
  • এরপর একটি ক্যাপচা আসবে। ক্যাপচা পূরণ করে Search লেখায় ক্লিক করবেন।
  • Search লেখায় ক্লিক করলে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদটি অনলাইন জন্ম নিবন্ধন তথ্য ব্যবস্থা বা Online BRIS এর ডাটাবেজে সংরক্ষিত অর্থাৎ অনলাইনে নিবন্ধিত আছে কিনা তা দেখতে পারবেন। যদি নিবন্ধিত থাকে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদটির সমস্ত তথ্য সেখানে দেখতে পারবেন।

এখানে ইংরেজিতে থাকলে ইংরেজি এবং বাংলা দুটি ভাষাতেই দেখতে পারবেন। যদি ইংরেজিতে না দেখায় তাহলে মনে করবেন আপনার জন্ম নিবন্ধন ইংরেজিতে করা নেই। তাহলে আপনার জন্ম নিবন্ধন ইংরেজিতে করতে হবে।  

জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করার নিয়ম
জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করার নিয়ম

জন্ম নিবন্ধন ইংরেজী করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র:

জন্ম নিবন্ধন ইংরেজিতে করতে হলে যে সকল কাগজপত্র আপনার হাতের নাগালে রাখতে হবে তা হলো–

  • আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি (যদি থাকে)।
  • জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করার আবেদন জন্য এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার মূল সার্টিফিকেট এর কপি(যদি থাকে)।
  • পিতা-মাতার জন্ম সনদ।
  •  পিতা-মাতার জাতীয় পরিচয় পত্র।

উপরিউক্ত কাগজগুলো স্ক্যান করে বা ছবি তুলে আপনার কাছে রাখবেন। তবে খেয়াল রাখতে হবে ছবির আকার যেন ১০০ কিলোবাইটের বেশি না হয়।

জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করার নিয়ম ও আবেদন পদ্ধতি

জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করা এবং তথ্য সংশোধন করা একই। তাই তথ্য সংশোধনের মাধ্যমেই আপনাকে জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করতে হবে।

সংশোধনের ধাপগুলো নিচে একে একে বলা হল:

  • বাংলা থেকে ইংরেজি করার জন্য প্রথমেই আপনাকে জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের ওয়েবসাইট ভিজিট করতে হবে। সাইটটি হলো https://bdris.gov.bd/br/application
  • ওয়েব সাইটের হোম পেজে প্রবেশ করার সাথে সাথেই স্ক্রিনে বিভিন্ন অপশন দেখতে পাবেন। সেখান থেকে ‘জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন’ অপশনে ক্লিক করতে হবে।
  • পরের ধাপে আপনাকে জন্ম নিবন্ধন নম্বর ও জন্ম তারিখ লেখার অপশনে আপনাকে বাংলা জন্ম নিবন্ধন সনদ পত্রের যে নম্বর রয়েছে এবং জন্মতারিখ রয়েছে তা যথাযথভাবে নির্ধারিত স্থানে লিখতে হবে। লেখার পর সার্চ অপশনে ক্লিক করুন।
  • এরপর আপনার জন্ম নিবন্ধন এর সকল তথ্য প্রদর্শিত হবে এবং নির্বাচন অপশনে ক্লিক করতে হবে।
  • পরবর্তী পৃষ্ঠায় আবেদনকারী অর্থাৎ আপনার ঠিকানা প্রদান করতে হবে।
  • আপনার স্থায়ী ঠিকানা নিবন্ধন কার্ড অনুসারে লিখতে হবে।
  • এরপর আপনি আপনার কাঙ্খিত পেজে চলে আসবেন। এই পেজের মাধ্যমে আপনি আপনার তথ্যটি বাংলা থেকে ইংরেজি রুপান্তর করতে পারবেন।
  • ওয়েব পেজে প্রবেশ করে সংশোধিত নামের উপর ক্লিক করলেই বিভিন্ন ভাষা দেখতে পাবেন। আপনি অবশ্যই ইংরেজি নির্বাচন করবেন।
  • সংশোধিত নাম অপশনে আপনার ইংরেজি অক্ষরের নাম লেখার ফাঁকা জায়গা থাকবে। সেখানে আপনার সার্টিফিকেট অনুসারে ইংরেজিতে নাম লিখতে হবে।
  • পরবর্তী ধাপে আপনার তথ্য সংশোধনের কারণ জানাতে চাওয়া হবে। কারনের ক্ষেত্রে আপনি ভুল তথ্য দাখিল অপশনটি নির্বাচন করবেন।
  • একইভাবে আপনার পিতা ও মাতার নাম ইংরেজিতে লিখুন।
  • এরপর আপনাকে নিজের স্থায়ী ঠিকানা লিখতে হবে বাংলা ও ইংরেজি দুই ভাষাতেই দেশের নাম, বিভাগ, জেলা, উপজেলা, পৌরসভা/ইউনিয়ন পরিষদ অথবা সিটি কর্পোরেশন, জন্মস্থানে ডাকঘরের নাম ও পোস্ট অফিস কোড ইত্যাদি বাংলা ও ইংরেজিতে লিখতে হবে।
  • ঠিকানা দেওয়া শেষ হলে আবেদনকারীর তথ্য দিতে হবে ওয়েবসাইটে। এজন্য প্রথম ঘরটিতেই আবেদনকারী জন্ম নিবন্ধনের ব্যক্তির সাথে কিভাবে সম্পর্কিত তা উল্লেখ করতে হবে। এক্ষেত্রে আবেদনকারী যেহেতু আপনি নিজেই। তাই আপনাকে ‘নিজ’ অপশনটি নির্বাচন করতে হবে। অন্যথায় নির্দেশনা অনুযায়ী নির্দিষ্ট ঘরে ক্লিক করতে হবে।
  • এরপর আবেদনকারীকে অর্থাৎ আপনাকে নিজের নাম, ঠিকানা, মোবাইল নম্বর এবং ইমেইল এড্রেস লিখতে হবে। আপনি যদি জন্ম নিবন্ধনের প্রকৃত মালিক বা তার পিতা-মাতা ছাড়া অন্য কেউ হয়ে থাকে, সেক্ষেত্রে তাকে নিচের আরো অতিরিক্ত দুটি ঘর পূরণ করতে হবে। ঘরগুলোর প্রথমটিতে আবেদনকারীকে তার জন্ম নিবন্ধন নং লিখতে হবে। এবং দ্বিতীয়টিতে আবেদনকারীকে তার জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর লিখতে হবে।
  • এরপর এই পৃষ্ঠাতেই নতুন দেওয়া তথ্যগুলোর জন্য প্রমাণ সংযুক্ত করে দিতে হবে। প্রমাণ হিসেবে তথ্যগুলোর ইংরেজি বানান সহ একটি করে নথি যুক্ত করতে হবে। একাজে আবেদনকারীকে জন্ম নিবন্ধনের ব্যক্তির এনআইডি কার্ডের ছবি এবং তার এসএসসির সার্টিফিকেট যুক্ত করতে হবে। যুক্ত করে পাশের ঘরগুলো থেকে ছবিটির টাইপ এবং সাব টাইপ নির্বাচন করতে হবে। এরপর ‘Start’ বাটনে ক্লিক করলেই ছবিটি আপলোড হয়ে যাবে।
  • আবেদনের এই অংশে আপনাকে জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধনের জন্য নির্ধারিত ফি ধার্য করা হয়েছে তা পরিশোধ করতে হবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের সেবা চালানের মাধ্যমে টাকা পরিশোধ করতে চান তা লিখুন এবং অতি শীঘ্রই টাকা পরিশোধ করুন।
  • আপনার দেওয়া তথ্যগুলো যে সঠিক হয় তাহলে আপনাকে জন্ম নিবন্ধন এর তথ্য সংশোধন করার ক্ষেত্রে পৌরসভা অথবা ইউনিয়ন পরিষদের কার্যালয়ে একটি নির্দিষ্ট তারিখে যোগাযোগ করার নোটিশ দেওয়া হবে।
  • উক্ত তারিখে আপনাকে আবেদনপত্রের অনলাইন কপি সংগ্রহ করে তা নিকটস্থ পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের কার্যালয় দেখা করুন। বাকি কাজ সেখানেই করা হবে।

জন্ম নিবন্ধন বাংলা থেকে ইংরেজ করতে প্রয়োজনীয় ফি:

তবে ইংরেজি তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করতে চাইলে আপনাদের কত টাকা ফি প্রদান করতে হবে এটি অনেকেই জানেন না। জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করার ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। যদি আপনি নতুনভাবে কোন জন্ম নিবন্ধন সনদ তৈরি করতে চান তাহলে আপনাকে সর্বোচ্চ ৫০ টাকা আবেদন ফি জমা দিতে হবে এবং এই টাকা আপনারা কোন ব্যক্তিগত ভাবে কারো কাছে প্রদান না করে নিবন্ধকের কার্যালয় যথাযথ রশিদ গ্রহণ করে প্রদান করতে হবে।

এছাড়াও কোনো ব্যক্তি যদি তার জন্ম নিবন্ধন সনদের তথ্য সংশোধন করতে চায়। তাহলে এই তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন ফি সর্বোচ্চ ৫০ থেকে ১০০ টাকা গ্রহণ করা হবে এবং আবেদন ভেদে আপনাদের এই টাকার পরিমাণ কমবেশি হবে।

জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করা মানে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করা। তাই আপনাকে ইউনিয়ন পরিষদ অফিস/পৌরসভা কার্যালয় বা ওয়ার্ড কাউন্সিলর অফিসে ৫০ থেকে ১০০ টাকাই পরিশোধ করতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন সনদের যেকোন তথ্য সংক্রান্ত কাজ-ই করে থাকুন না কেন আপনি উপরে উল্লেখিত তথ্যের ভিত্তিতে টাকা প্রদান করুন। এর চেয়ে বেশি টাকা চাইলে আপনি সরাসরি কর্তৃপক্ষকে অবহিত করতে পারেন। জন্ম নিবন্ধন সনদের যদি কারো ভুল থেকে থাকে তাহলে আপনারা তথ্য সংশোধন করবেন এবং এই তথ্য সংশোধন করার জন্য আপনাদের প্রয়োজনীয় প্রমাণস্বরূপ ডকুমেন্টস প্রদান করতে হবে।

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস এ রেখে আপনারা অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করুন এবং যখন আপনাদের থেকে তথ্য সংযোজন করতে চাওয়া হবে ।

জন্ম নিবন্ধন ইংরেজী করার সময় যে যে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে:

অনলাইনে বাংলা জন্ম নিবন্ধনকে ইংরেজি করার জন্য আবেদন করার সময় আপনার কিছু সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। না হলে পরে ভুল হয়ে গেলে, ভুল শুধরানোর জন্য আবার আপনাকে অনেক সময় ব্যয় করে এবং টাকার অপচয় করে ভুল সংশোধন করতে হবে।

প্রথমেই যাতে কোন ভুল না হয় সে ব্যাপারে খেয়াল রাখতে হবে। আপনার নাম, বাংলা এবং ইংরেজি বানান, আপনার বাবা মা-র নাম, তাদের নামের বানান ভালো করে দেখে শুনে দিবেন। বিশেষ করে ইংরেজি বানান ভালো করে খেয়াল করে দিবেন।

যাতে ভুল না হয়। জন্ম তারিখ এবং জন্ম সাল দেয়ার সময় খেয়াল রাখবেন। জন্ম সালের ক্ষেত্রে একটি মাত্র ডিজিট এর হেরফের হলে বয়সের অনেক তারতম্য দেখা দিবে। তাই সঠিকভাবে জন্ম সাল পূরণ করার জন্য বলা হলো। অন্যান্য তথ্যগুলোও খুব সাবধানতাবশত, প্রয়োজনে একের অধিকবার দেখে পূরণ করবেন।

আশা করছি পুরো আর্টিকেলটি পরে আপনারা জন্ম নিবন্ধন কিভাবে বাংলা থেকে ইংরেজি করতে হয় তা সম্পর্কে জেনেছেন। এবার আপনি ঘরে বসেই পুরাতন জন্ম নিবন্ধনকে ইংরেজি ভাষায় রূপান্তর করতে পারবেন।

যাদের জন্ম নিবন্ধন তথ্য শুধু বাংলায় করা, তাদের উচিত খুব দ্রুত সময়ের মধ্যেই জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করে নেওয়া। বর্তমানে দেশ এবং দেশের বাইরে ইংরেজি জন্ম নিবন্ধনের প্রয়োজনীয়তা অত্যাধিক। আপনি উপর্যুক্ত নিয়ম অনুসরণ করা খুব সহজেই সেটি করতে পারেন।

লিখেছেন: রাকিব খান

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *